1. admin@bongojournal24.com : admin :
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
কিশোর কিশোরীদের সচেতন করতে দুর্গাপুরে কৈশোর মেলা বাংলাদেশ ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানি করতে আগ্রহী : প্রধানমন্ত্রী দুর্গাপুরে একযোগে ৭টি উন্নয়ন কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন এমপি রুহী আমার প্রত্যেকটা কাজ,ব্যতিব্যস্ততা আপনাদের জন্য : জনসাধারণের প্রতি এমপি রুহী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রেস সচিব হলেন নাঈমুল ইসলাম খান মানিকগঞ্জে দুই উপজেলায় মোটরসাইকেল প্রতিকের জয়জয়কার বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ রোল মডেল : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্গাপুরে ফসলি জমি ধংস করে বালু বিক্রি হিড়িক,প্রশাসনের অভিযান পলাশবাড়ীতে ঘুর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি মানিকগঞ্জে উন্মুক্ত বাজেট সভা অনুষ্ঠিত

দুর্গাপুর নিয়ে কিছু ভাবনা – শাওন হাসান

বঙ্গ জার্নাল
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
  • ১৭৬ বার পঠিত

 

মেঘালয়ের কোল ঘেঁষে ময়মনসিংহ বিভাগের উত্তরে নেত্রকোনায় অবস্থিত এক টুকরো স্বর্গ ‘সুসং দুর্গাপুর’। শান্ত, স্নিগ্ধ ও চারপাশে সবুজে আবৃত মনোরম পরিবেশ। তা ছাড়া রয়েছে সুউচ্চ পাহাড়, হ্রদ, টিলা, বিভিন্ন সংস্কৃতির ছোঁয়া ও নদ-নদীর সমাহার। ইবনে বতুতার ‘দোজখণ্ডই-পুর নেয়ামত’ কিংবা জীবনানন্দের রূপসী বাংলা সবই বিদ্যমান এখানে। যান্ত্রিক পৃথিবীর কোলাহলে আবদ্ধ আমাদের জনজীবনের স্বপ্নের ঠিকানা এটি। প্রকৃতিপ্রেমীদের জন্য অন্যতম আদর্শ স্থান। এটি পাহাড়, নদী ও ঐতিহ্যবাহী স্থানে ভরপুর প্রকৃতির রাজ্য, অপরূপ লীলাভূমি সুসং দুর্গাপুর।
নেত্রকোনা সদর থেকে ৪৫ কিলোমিটার উত্তরে এ পাহাড়ি এলাকা। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের গারো পাহাড়ের কোল ঘেঁষে সোমেশ্বরী নদীকে আঁকড়ে ধরে গড়ে উঠেছে এই ছোট্ট জনপদ—দুর্গাপুর।

দুর্গাপুর- কলমাকান্দা পাশাপাশি এই ২ উপজেলা নিয়ে গঠিত একটি আসন।অপার সম্ভাবনার এই ২ উপজেলা নিয়ে সুসং দুর্গাপুরের বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, কবি শাওন হাসান এর কিছু ভাবনা পয়েন্ট আকারে তুলে ধরা হলো –

গুরুত্বপূর্ণ কাজ, ,,,, আমার ভাবনা,,,,
তারিখ,, ১২/১০/২৩ইং।

১।কমলাকান্দা পৌরসভা করা।
২।কমলাকান্দায় মাছের একটি ভাস্কর্য তৈরি করা
৩। কমলাকান্দায় বাস স্ট্যান্ডের স্থান ঠিক করা,দুর্গাপুর বাস স্ট্যান্ড সরিয়ে পুলিশ মোড়ে করা।
৪।দুর্গাপুর কমলাকান্দায় রাস্তার পাশে ও পাহাড়ে কিছু বনজ ফলজ গাছ লাগানো।
৫।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দার পাহাড়ের সাইডে বসার বেঞ্চ ও বিজয়পুর,ফান্ধা,বারমারি,পাচঁগাও পর্যটন স্পষ্টগুলোতে ছাতা দেয়া, লাইট দেয়া।
৬।দুর্গাপুর কোনো এক যায়গায় আদিবাসী ভাস্কয তৈরি করা।
৭।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নাম ফলক করা। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আলাদা কবরস্থানের ব্যবস্হা করা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামে রাস্তার নাম করন করা।
৮।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস সম্মিলিত বই বের করা।
৯। এম কে সি এম স্কুল, বিরিশিরি, কলেজ মাঠে চারপাশে লাইট দেওয়া,ও কমলাকান্দা স্টেডিয়াম মাঠে লাইট দেয়া।
১০। দুর্গাপুর ও কমলাকান্দায় মাদক নিয়ন্ত্রণ করা
১১। কলমাকান্দা ও দুর্গাপুর বিদ্যুৎ ও বাজার দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করা, হাসপাতাল গুলো কে নিয়ন্ত্রণ করা।
১২।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা গ্যাস আনার ব্যবস্থা করা ও পর্যটন এরিয়া গড়ে তোলা।
১৩। কমলাকান্দা ও দুর্গাপুরের কবিদের স্থায়ী একটা ঘর করা, কবিতা চত্বর হিসেবে নদীর পাড়ে নাম দেওয়া।
*যে সকল কবি ও গল্পকার দরিদ্র তাদের বই বের করা।
১৪।বেশি বেশি খেলাধুলা করানো যাতে করে কিশোর কিশোরীরা খেলায় মগ্ন থাকবে, মাদক থেকে দূরে থাকবে।
১৫।শহীদ আওয়াল স্যার কে বুদ্ধিজীবী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া।
১৬। এম কে সি এম স্কুলের শতবর্ষ ও বিরিশির স্কুলের শতবর্ষ উদযাপন করা।
১৭।বিজয়পুর অথবা পাঁচগাও এলাকায় আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম করা।
১৮। দুর্গাপুর মুক্তিযোদ্ধা মোড় বা নাজিরপুর মোরের অটোগুলোকে এম কে সি এম,মোরে স্থানান্তর করা।কালিবাড়ি মোরের অটোগুলো কে, আত্রাখালিতে স্থানান্তর করা,যাতে করে যানজট কম হবে।
১৯।ঢাহা পাড়া ও বাদাম বাড়ির মধ্যস্হানে লাল টিলা পাহাড়ের চিপা রাস্তায় লাইট এর ব্যবস্ত্যা করা,যাতে করে বন্যহাতীর থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।
২০।হিজরাদের কাজের ব্যবস্ত্যা করা,শিক্ষার ব্যবস্থা করা।
*ঋষি, হিজরা,মেথর, এদের জন্য সরকারি যায়গায় ঘর তেরী করা।
২১।জেলা করা,
২২।সাত শহীদের মাজারে যাওয়ার রাস্তা করা।
২৩।শহীদ মিনার গুলোতে সংরক্ষণের ব্যবস্তা করা, বাউন্ডারি করা, ফুলের চারা লাগানো।
২৪।শহীদ সন্তোষ এর নামে শিশু পার্কটা চালু করা,এটা হবে বিনোদনের মাধ্যম।
২৫।যে সকল জায়গায় সমস্যা সেখানে, নদীতে বাঁধ দেওয়া, ও নদীর পারে ব্লক দেওয়া।
২৬।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দায় একাডেমি করা ক্রিকেট অথবা ফুটবলের, ভালো কোচ দিয়ে কোচিং করানো।
২৭।কলমাকান্দা ও দুর্গাপুর এর গুরুত্বপূর্ণ যায়গায় সিসি ক্যামেরা দেওয়া। বিভিন্ন স্কুলের মাঠ গুলো তে সিসি ক্যামেরা দেওয়া।
২৮। কলমাকান্দা ও দুর্গাপুরের রাস্তা গুলোতে লাইট দেওয়া।
২৯।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা পর্যটন হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার ব্যবস্থা করা।
৩০। দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা ছাত্রলীগের ছেলেদের পড়াশোনা ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা। আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ তাদের কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ কর।
৩১।অবৈধ কাজ ও অবৈধ ব্যবসা বন্ধ করা।
৩২। দুর্গাপুর ও কমলাকান্দায় বড় করে ইসলামি সম্মেলন করা।
৩৩।মাদ্রাসা গুলোতে কম্পিউটার থাকবে,ও ছাত্র রা কম্পিউটার শিখবে ।
৩৪।স্কুল গুলোতে শিক্ষানীয় কুইজের ব্যবস্থা করা।
৩৫।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা ফুলের চাষ করা ও উন্নত মানের গলদা চিংড়ি চাষ করা,
৩৬।খাস জমি গুলোকে অবৈধ দখল থেকে সরকারি দখলে আনা। ৩৭। গ্রামের মহিলাদের যে যে কাজে দক্ষতা তারা সে কাজ করবে, যেমন হাস পালন,সেলাই,নকশিকাঁথা, এবং এদের তৈরী জিনিস বাইরে বিক্রির ব্যবস্থা করা।
৩৮।উপজাতির ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষার ব্যবস্থা করা,
* মেলা গুলো চালু করা।
৩৯।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দায় জিমের ব্যবস্থা করা।
৪০।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দা বাজার পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা।
৪১।পুকুর ও খাল রক্ষা করা।
৪২। মুক্তমঞ্চ করা,,,, দুর্গাপুর কমলাকান্দায়।
৪৩।ধানের সিন্ডিকেট ভাঙা, ধান ব্যবসায়ীরা বাটপারি করে,ধানের দাম বেশী নেয়,অন্যান্য এলাকা থেকে,ধান মাপেও বেশি নেয়,।,
৪৪।নদীর পাড়ে যে বর্তমানে ব্লক আছে, শ্মশান খলা থেকে বিরিশির পর্যন্ত। এখান থেকে প্রায় ১০০ হাত পশ্চিমে,বালু ভরাট করে, জায়গা করা যাতে করে মানুষের বাসস্থানের ব্যবস্থা হয়,।
৪৫। পশ্চিম দিকে নদী খনন করা।
৪৬। কণ্ঠশিল্পী ও নৃত্যশিল্পী এদের উন্নত মানের ওস্তাদ দ্বারা, প্রশিক্ষণ দেওয়া।
৪৭। দুর্গাপুর কমলাকান্দা, সাঁতার দোড়, কাবাডি ও বিভিন্ন খেলায় প্রশিক্ষণ দেওয়া।
৪৮।কমলাকান্দা ও দুর্গাপুর আবৃত্তি শিল্পী দ্বারা আবৃত্তি শিখানো,ও ভালো চিত্রশিল্পী দ্বারা আর্ট শিখানো।
৪৯।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দ উন্নত ড্রাইভার দিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া যাতে করে ভালোভাবে কাজ শিখতে পারে, এতে করে এরা বিদেশ এবং দেশে ভালো সেবা দিতে পারবে।
৫০।দুর্গাপুর ও কমলাকান্দায় যারা ভালো রান্না করতে পারে,তাদের নিয়ে একটা প্রতিযোগিতা করা, এতে করে বিদেশে ভালো রান্নার লোক পাঠানো যাবে।
৫১। কিশোর গ্যাং বন্ধ করা,,,
৫২। বেকার দের,সেলাই প্রশিক্ষণ,চুল কাটার প্রশিক্ষণ, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, ওয়ার্কশপ প্রশিক্ষণ দেয়া,,যাতে করে বিদেশ অথবা দেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়।
৫৩।উন্নত মানের চিকিৎসা ও হাসপাতালের ব্যবস্থা করা
৫৪। উন্নতমানের যাতায়াত ব্যবস্থা করা।
৫৫। ট্রাকের হেল্পার দ্বারা গাড়ি চালানো নিষিদ্ধ, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ড্রাইভার দ্বারা গাড়ি চালানো, বাজারগুলোতে দেখেশুনে গাড়ি চালানো ও গতি নিয়ন্ত্রণ করা।
৫৬।ফিটনেস বিহীন গাড়ি নিষিদ্ধ ও প্রত্যেক ড্রাইভারের লাইসেন্স করা,
৫৭,।এক্সিডেন্ট হলে সঠিক আইন দ্বারা বিচার করা ও দোষীকে শাস্তি দেওয়া।
৫৮। কমলাকান্দা ও দুর্গাপুরে সিনেপ্লেক্স করা।
৫৯।কমলাকান্দা ও দুর্গাপুরে শপিং মল করা,
৬০।ঈদগা মাঠগুলো সংরক্ষণ ও বৃষ্টির দিনে সামিয়ানার ব্যবস্থা করা,যাতে করে মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করা যায়।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা